সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বলিউডের বহুল আলোচিত অভিনেত্রী সানি লিওনের রয়েছে অসংখ্য ভক্ত-অনুসারী। এদের ভালোবাসা তাঁকে যেমন সিক্ত করে, তেমনি তাদের মাধ্যমে হয়রানির শিকারও নাকি হয়েছেন এ অভিনেত্রী। এক খবরে এমনটাই জানিয়েছে ইন্ডিয়া টুডে।

খবরে বলা হয়েছে, বেশ কিছুদিন আগের ঘটনা। সানি লিওনের স্বামী ড্যানিয়েল বেবার তখন দেশে ছিলেন না। টুইটারে কেউ একজন তাঁকে হুমকি দিয়েছে। ঘটনা শুধু এখানেই থেমে থাকেনি, হুমকিদাতা তাঁকে বাড়িতে এসে ক্ষতি করবে বলেও জানায়। এতে ভীষণ ভয় পেয়ে যান সানি।

সংবাদমাধ্যমের বরাতে সানি লিওন বলেন, ‘এ ঘটনার কিছুদিন পর কেউ একজন আমার বাসার দরজায় ধাক্কা দিচ্ছিল। কড়া নাড়ার শব্দ শুনে ছুরি হাতে দরজার কাছে যাই। অবস্থা এমন মনে হচ্ছিল, দরজা ভেঙে বাড়িতে ঢুকে পড়বে। এরপর বাড়ি পরিবর্তন করি। সেই ভয়াবহ অভিজ্ঞতা এখনো মনে হলে গা শিউরে ওঠে।’

এদিকে সাইবার হয়রানি বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করতে একটি এনজিওর সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন সানি লিওন। তাঁর মতে, ‘আজকাল উঠতি ছেলেমেয়েরা হয়রানির শিকার হয়ে হতাশায় ভোগে। অনেকে এসব সহ্য করতে পেরে শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যা করে। কিন্তু আমরা এ বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করতে পারি। সৌভাগ্যের বিষয়, সবাই আমাকে সাহায্য করছেন। আমি এখন অনেক শক্তিশালী।’

এ বছরের জুলাইয়ে সানি ও ড্যানিয়েল দম্পতি নিশা নামের একটি শিশুকে মহারাষ্ট্রের লাতুর গ্রাম থেকে দত্তক নিয়েছেন। ২০০৯ সালে বিয়ে করা সানি ও ড্যানিয়েল তাঁদের পরিবারের নতুন সদস্য নিয়ে এখন বেশ আনন্দে আছেন। সানির দত্তক নেওয়া সন্তান নিশার বয়স এখন দুই বছর। ২৪ নভেম্বর মুক্তি পেতে যাচ্ছে সানি লিওনের পরবর্তী সিনেমা ‘তেরা ইন্তেজার’। রাজীব ওয়ালিয়া পরিচালিত এ সিনেমায় তাঁর বিপরীতে অভিনয় করছেন আরবাজ খান।

সূত্র – প্রথম আলো।